SS TV live
SS News
wb_sunny

এই মুহুর্তে

আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, আমার বক্তব্যকে ভিন্ন অর্থে ব্যবহারের ষড়যন্ত্র চলছে

 



নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় আসন্ন তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী প্রচারণার বক্তব্যের ২৩ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে তার বক্তব্যকে ভিন্ন অর্থে ব্যবহারের ষড়যন্ত্র চলছে বলে দাবি করেন পিরোজপুর ইউনিয়নে ৬নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য (মেম্বার) প্রার্থী রফিকুল ইসলাম সরকার।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে পিরোজপুর ইউনিয়নে ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম সরকার জানান, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। আমার এলাকার মুরব্বিদের অনুরোধে নির্বাচনে মেম্বার হিসেবে অংশ গ্রহণ করার পর থেকে প্রতিপক্ষের লোকজন আমার সমর্থকদের বিভিন্ন ভাবে অত্যাচার করে আসছে যার প্রেক্ষিতে গত ২২ নভেম্বর বিকেলে মৃধাকান্দীতে আমার নির্বাচনী প্রচারণার উঠান বৈঠকে আমার সমর্থক স্থানীয় লোকজন তাদের উপর আমার প্রতিপক্ষের লোকদের চাপ ও হুমকির কথা জানালে আমি তাদের কে সাহস যোগাতে আমি বলেছিলাম “ভালোভাবে বলে দিতে চাই, কেউ যদি হুমকি-ধামকি দেয় আমাকে বলবেন, “আমি প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেব। প্রশাসনের সাথে মিলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহায়তায় এলাকার মাস্তান ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবো।”

তিনি আরো জানান, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আমার ব্যাপক জনসমর্থন ও জনপ্রিয়তা দেখে আমার প্রতিপক্ষের লোকজন নিজেরাই আমার সমর্থকদের মারধর করছেন আবার উল্টো তারাই এটাকে আমার উপর চাপিয়ে দিয়ে নোংরা রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ছেন। এতে আমার এলাকায় সাধারণ জনগনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। আমি স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশের প্রতি আস্থাশীল। আমার পিরোজপুর ৬নং ওয়ার্ডের নির্বাচন সুষ্ঠ করতে তারা যথেষ্ট সচেতন। আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় একটি উৎসব মুখোর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে। ইন শা আল্লাহ 

পিরোজপুর ৬নং ওয়ার্ডের ছয়হিস্যা এলাকার ভোটার জেলে সিরাজ মিয়া জানান, পরোপকারী ও সমাজ সেবক হিসেবে রফিকুল ইসলামকে মোরগ মার্কায় ভোট দিবে, তাই তার পক্ষে বিভিন্ন প্রচার প্রচারণায় আমি যাই। গত কয়েকদিন যাবত আমি ছয়হিস্যা ব্রীজের ঐপাড়ের চায়ের দোকানে গেলেই আপেল মার্কার লোকজন আমাকে হুমকি দেয় এবং নির্বাচন গেলে দেখে নিবে বলে আমাকে চায়ের দোকানে বস্তে দেয় না। আমি এদের বিচার চাই। 

যেই যুবকের অভিযোগের জবাবে মৃধাকান্দীতে মোরগ প্রতীকে মেম্বার পদপ্রার্থী রফিকুল ইসলাম সরকার প্রশাসনিক সাহায্য চেয়েছেন সেই যুবক আমিরুল ইসলাম জানান, আমার এলাকার আপেল ও মোরগ মার্কার দুটি ক্লাব আছে। আমি মোরগ মার্কার সাপোর্টার বলে আপেলের এমএ হালিমের লোকজন আমাকে রাস্তায় প্রায় প্রতিদিনই মারধর করছে এবং হুমকি দিচ্ছে। 

এ ব্যাপারে ৬নং ওয়ার্ডের প্রতিদ্বিন্দ্বী প্রার্থী এমএ হালিম বলেন, এ ভিডিও বক্তব্যের বিষয়ে প্রশাসন সঠিক পদক্ষেপ নেবে বলে আমি আশাবাদী।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন