SS TV live
SS News
wb_sunny

এই মুহুর্তে

মামলার প্যাঁচে পিছিয়ে আছে সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচন

 



নারায়ণগঞ্জ  সোনারগাঁও প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁও  পৌর এলাকা সিমানা নির্ধারণ নিয়ে  মামলার প্যাচে পিছিয়ে আছে  পৌরসভার  নির্বাচন। দীর্ঘদিন  ধরে আদালতে ঝুলে আছে সীমানা প্রাচীর নিয়ে   মামলা। 


নির্বাচন আইন অনুযায়ী, মেয়াদ শেষের আগের ৯০ দিনের মধ্যে স্থানীয় সরকারের এ প্রতিষ্ঠানে ভোট করতে হয়। সেই সূত্র ধরে ইতোমধ্যে সোনারগাঁও পৌরসভার গেলো  বছরের   ২০২০ সালের ২৫ ডিসেম্বরে পরে নির্বাচন  তফসিল  ঘোষণার কথা। কিন্তু এখনও সোনারগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে তফসিল ঘোষণা হচ্ছে না।  


নির্বাচন কমিশন সময়সীমার মধ্যে পঞ্চম ধাপেও সোনারগাঁও পৌরসভার নাম নেই।  দ্রুত সমস্যার নিরসন করে নির্বাচনের দাবি করেছেন পৌর  নাগরিকরা।


পৌরবাসী  সূত্রে  জানা যায়,  সোনারগাঁও পৌরসভার মল্লিকপাড়া মৌজার কয়েকটি দাগের জমি ইকোনমিক জোনের জন্য মোগরাপাড়া ইউনিয়নে কর্তন করে নিয়ে যায়। তা ফিরিয়ে আনতে সোনারগাঁও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ মানববন্ধন ও একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলাটি সুরাহা না হওয়ায় নির্বাচন স্থগিতই হতে পারে।




মেয়র সাদেকুর রহমানকে    দুষছেন অনেকেই। তার কলকাঠিতেই মামলার জালে নির্বাচন  বন্ধ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পৌরবাসীরা।


অভিযোগ প্রসঙ্গে মেয়র সাদেকুল ইসলামের সাথে জানতে  চাইলে  ফোনে  যোগাযোগ  করে  পাওয়া  যায়নি। 


সোনারগাঁও পৌরসভার মহিলা মেয়ের প্রার্থী  নাসরিন  সুলতানা  ঝরা  বলেন,  সোনারগাঁও  পৌরবাসী চায় জটিলতা কাটিয়ে পৌর নির্বাচন হোক। নির্দিষ্ট সময়ে পৌরসভা নির্বাচন না হলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ছোয়া থেকে বঞ্চিত হবে সোনারগাঁও পৌরবাসী।


 


এ ছাড়াও পৌরবাসী বলেন, ভোট না হলে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত হয় না। আমরা ভোটের মাধ্যমে প্রতিনিধি নির্বাচন করে নাগরিক অধিকার ফিরে পেতে চাই। 


উপজেলা  নির্বাচন  কমিশনার  ইউসুফ উর  রহমান  বলেন, আগামী  ২৩ ফেব্রুয়ারিতে বর্তমান  মেয়রে মেয়াদ  শেষ  হবে, নির্বাচন  আইন অনুযায়ী  ৯০ দিনের মধ্যে  নির্বাচন হওয়ার কথা।  স্থানীয়  সরকার  মন্ত্রণালয়ের থেকে  এখন পর্যন্ত   আমরা  আনুষ্ঠানিক ভাবে কোন অনুরোধ   পাইনি অনুরোধ    পেলে আমরা নির্বাচনের   আয়োজন  করবো।


এ বিষয়ে, সোনারগাঁও  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল  ইসলাম  বলেন, পৌর নির্বাচন  ব্যাপারে  আমার  কাছে  কোন তথ্য নেই , এই ব্যাপারে  নির্বাচন  কমিশন  বলতে পারবে।


Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন