SS TV live
youtube
wb_sunny

এই মুহুর্তে

সোনারগাঁওয়ে কলেজ ছাত্রের উপর হামলায় ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

 


সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতাঃ 

সোনারগাঁওয়ে কলেজ ছাত্র ফাহিমের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় কিশোর গ্যাংয়ের ৭ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ফাহিমের মা মোসা. সাজেদা আক্তার ওই মামলা করেন। তবে এখন পর্যন্ত পুলিশ কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।


আসামিরা হলেন, সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর এলাকার মোঃ জহিরুল ইসলামের ছেলে নীরব (২২) ও মো. ইউসুফ মিয়ার ছেলে মামুন (১৬), সামছুদ্দিনের ছেলে মোতালেব (৩৫), মো. আনোয়ারের ছেলে রাহাদ (১৩), মজু মিয়ার ছেলে জাহিদ হাসান (২৩), অজ্ঞাত জাকের (২৭), ফারুকুলের ছেলে আল আমিন (২৩)। এই মামলায় ছয় থেকে সাতজনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। পুলিশ বলেছে, ফাহিমের শরীরের বিভিন্ন অংশে বিশেষ করে পিঠে ধারালো দেশীয় অস্ত্রের আঘাত পাওয়া গেছে।



মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, বাদী আহত কলেজ ছাত্র ফাহিমের মা সাজেদা আক্তার জানান গত ১লা ডিসেম্বর এলাকায় ঘুড়ি খেলার সময় এলাকার কিছু যুবকদের সাথে পিরোজপুর এলাকায় ঘুড়ি উড়ানোকে নিয়ে বিবাদীদের সাথে ফাহিমের ঝগরা হয়। সেই তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফাহিমকে রাস্তায় চলাচলরত অবস্থায় পথরোধ করে ছেনদা, চাপাতি, লোহাররড, লাঠি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।এসময় তারা গ্যাসের লাইট দিয়ে মুখে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিতে চাইলে বিভিন্ন অংশে পু্ড়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তাকে আহত অবস্থায় তুলে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।


ঘটনাস্থলের পাশের একাধিক ব্যক্তি জানান, ছয় থেকে সাতজন কিশোর বয়সের ছেলে ধারালো অস্ত্র নিয়ে ফাহিমকে ধাওয়া করেছিল। এদিকে সোনারগাঁওয়ে কিশোর গ্যাং আতঙ্ক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। অনেক অভিভাবকও আতঙ্কে আছেন তাদের ছেলেরা ভুল করে না ওই গ্রুপের সঙ্গে মিশে যায়। 

এ বিষয়ে সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন