SS TV live
youtube
wb_sunny

এই মুহুর্তে

একান্ত সাক্ষাতকারে দাগনভূঞার মেয়র প্রার্থী আবুল কায়েশ রিপন

 



বিশেষ সাক্ষাৎকার :

আসন্ন দাগনভূঞা পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী,  পৌর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী, দানবীর, আবুল কায়েশ রিপন। নির্বাচনসহ নানা বিষয়ে কথা বলেন মেয়র পদপ্রার্থী আবুল কায়েশ রিপন। তিনি পৌর এলাকার জনগনকে নিয়ে তার স্বপ্ন ও পরিকল্পনার কথা বিশেষ সাক্ষাতের মাধ্যমে জানিয়েছেন।


সোনারগাঁও সময় : কেমন আছেন?

রিপন: আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

সোনারগাঁও সময়: দাগনভূঞা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হচ্ছেন কি?

রিপন: আসন্ন দাগনভূঞা পৌর নির্বাচনে মনে-প্রাণে প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করছি। তাছাড়া সাধারণ জনগনের ইচ্ছা রয়েছে আমি যেন আগামী দাগনভূঞা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হই।

সোনারগাঁও সময়: আপনার পরিচয় সম্পর্কে বলুন?

রিপন: ১৯৭৪ সালে দাগনভূঞা পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড লক্ষনপুর গ্রাম (সালামনগর) এক সভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে আমার জন্ম। পিতা- মৃত হাজী মো. আবুল কাশেম বি.এ (অবঃ) সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা। মাতা- গোল আরা বেগম, আমরা দুই ভাই- এক বোন।

সোনারগাঁও সময়: আপনার শিক্ষা জীবন সম্পর্কে কিছু বলুন?

রিপন: নোয়াখালী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে ১৯৯৭-১৯৯৮ সেশনে রাষ্টবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করি। পড়ালেখা শেষে এক্সিম ব্যাংক লিমিটেড ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় সুনামের সাথে ৫ বছর চাকুরি করার পর পদোন্নতি নিয়ে ওয়ান ব্যাংক নিমিটেড দাগনভূঞা শাখায় যোগ দান করি।

সোনারগাঁও সময়: সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত সম্পর্কে বলুন?

রিপন: ২০১৩ সাল থেকে দাগনভূঞা বাজার ব্যাবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। বর্তমানে ভাষা শহীদ সালাম মেমোরিয়াল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। উক্ত কলেজটি আমি নিজ উদ্যেগে এবং নিজস্ব জায়গার মধ্যে প্রতিষ্ঠা করি। এছাড়াও ভাষা শহীদ সালাম নগরে ভাষা শহীদ সালাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৫ শতাংশ জায়গা,  সালাম নগরের পাশে হীরাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য ৫২ শতাংশ জায়গা আমাদের পরিবারবর্গ দান করে। এছাড়া কৃঞ্চরামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ২ বারের সভাপতি। কৃঞ্চরামপুরে ইসা উলম মাদ্রাসা ও বদরপুর উলুম মাদ্রাসা, মানবাধিকার কমিশন দাগনভূঞা শাখার আহবায়ক, উজির মিয়া জামে মসজিদের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছি।

সোনারগাঁও সময়: আপনি কোন আদর্শের রাজনীতি করেন।

রিপন: আমি এবং আমার পরিবারবর্গ ঐতিহ্যগত ভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে রাজনীতি করি। ১৯৯০ সালে করিম উল্ল্যাহ উচ্চ বিদ্যালয় ছত্রালীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে আমার রাজনীতিতে প্রবেশ। পরবর্তী ইকবাল মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের ছাত্রলীগ রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করি। ২০১৩ সাল হতে পৌর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। ৯০ এর অসহযোগ আন্দোলনে একনিষ্ঠ ভূমিকা পালন করি। এছাড়া আমাদের পরিবার রাজনৈতিকভাবে নির্যাতিত পরিবার, যা এলাকাবাসী ও কেন্দ্রীয়ভাবে সকলে অবগত আছেন।


সোনারগাঁও সময়: আপনি মেয়র হলে মাদক নিয়ন্ত্রনে আপনার ভূমিকা কেমন হবে?

রিপন: উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগ এর সভাপতি দিদারুর কবির রতন ও দাগনভূঞা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় পৌরসভাকে মাদক মুক্ত রাখার আপ্রাণ চেষ্ট করবো।

সোনারগাঁও সময় : মেয়র পদে নির্বাচিত হলে পৌরসভাবাসীর জন্য আপনার প্রাথমিক কাজ গুলো কি হবে?

রিপন: আল্লাহর মেহেরবানিতে জনগনের দোয়া এবং ভোটে আমি পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হলে প্রথমে আমি পৌরসভার সমস্যা চিহ্নিত করবো এবং তা সমাধান করার চেষ্টা করবো। দীর্ঘ ২০ বছরের পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড এর মধ্যে ৭টি ওয়ার্ড এ গ্যাস সংযোগ নেই। আমি ঐ ৭টি ওয়ার্ড ও গ্যাস সংযোগ স্থাপন করবো। পানি নিস্কাশনের জন্য ড্রেনের ব্যাবস্থা নেই, ড্রেন নির্মান করার মাধ্যমে পানি নিস্কাশনের সমস্যা দূর করবো। ময়লা ফেলার জন্য নেই কোনো আলাদা ডাস্টবিন, ময়লা ফেলার জন্য আলাদা ডাস্টবিনের ব্যবস্থা করবো। বেওয়ারিশ লাশ দাফনের জন্য স্থায়ীভাবে পৌর কবরস্থান ও পৌর মহাশ্মাশান নির্মান করবো। (ইনশাআল্লাহ)

সোনারগাঁও সময়: আমাকে সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। 

রিপন: মিঠু ভাই আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ, জনপ্রিয়  অনলাইন সোনারগাঁও সময়ে'র মাধ্যমে আমার সাক্ষাতকারটি তুলে ধরার জন্য।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন