SS TV live
SS TV
wb_sunny

এই মুহুর্তে

আজ ফুটবল কিংবদন্তি লিওলেন মেসির জন্ম দিন



Happy birthday too you boss messi10
আর্জেন্টিনা  ফুটবল এর জাদুকর লিওনেল মেসি 
1987 সালের  24 শে জুন আজকের এই দিনে এই ধরনিতে জন্মগ্রহণ করেন।। আজ তার জন্ম দিন ৩২ বছর বয়স থেকে ৩৩ বছরে পদার্পন করলেন। 
#নিচে তার জিবনি তুলে ধরা হলোঃ

"মধ্য আর্জেন্টিনায় জন্ম এবং বেড়ে ওঠা মেসি ছোট বেলায় গ্রোথ হরমোন সংক্রান্তd জটিলতায় আক্রান্ত হন। ১৩ বছর বয়সে তিনি বার্সেলোনায় যোগ দিতে স্পেনে চলে আসেন, কারণ তারা তার চিকিৎসার খরচ বহনের দায়িত্ব নিয়েছিল। বার্সেলোনার যুব প্রকল্পে দ্রুত অগ্রগতির মধ্য দিয়ে ১৭ বছর বয়সে ২০০৪ সালের অক্টোবর মাসে তার বার্সেলোনা মূল দলে অভিষেক হয়। ক্যারিয়ারের শুরুতে ইনজুরি-প্রবণ হলেও, ২০০৭ সাল নাগাদ তিনি নিজেকে ক্লাবের অবিচ্ছেদ্য অংশে পরিণত করেন। ২০০৭ সালের ব্যালন ডি অর এবং ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কারে তিনি প্রথম তিনজনের একজন হিসেবে স্থান করে নেন এবং পরবর্তী বছর তিনি উভয় পুরস্কার জয় করেন। তার প্রথম অবিচ্ছিন্ন মরসুম ছিল ২০০৮-০৯ যেখানে তিনি বার্সেলোনাকে ট্রেবল জয়ে সাহায্য করেন। ২২ বছর বয়সে মেসি রেকর্ড ভোটের ব্যবধানে ব্যালন ডি অর এবং ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার জয় করেন।
মেসি আর্জেন্টিনার ইতিহাসের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। বয়সভিত্তিক পর্যায়ে মেসি আর্জেনটিনাকে ২০০৫ ফিফা ইয়ুথ চ্যাম্পিয়নশিপ জেতাতে সাহায্য করেন যে টুর্নামেন্টে তিনি সর্বোচ্চ গোলদাতা এবং সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জয় করেন। এছাড়া তিনি ২০০৮ গ্রীষ্মকালীন অলম্পিকে তিনি স্বর্ণপদক জয় করেন। ২০০৫ সালের অগাস্টে তার আর্জেন্টিনা জাতীয় দল এ তার অভিষেক হয়। ২০০৬ ফিফা বিশ্বকাপ এ গোল করার মধ্য দিয়ে তিনি সর্বকনিষ্ঠ আর্জেন্টাইন হিসেবে বিশ্বকাপে গোল করার কৃতিত্ব অর্জন করেন। ২০০৭ কোপা আমেরিকায় তিনি টুর্নামেন্ট সেরা যুব খেলোয়াড়ের পুরস্কার লাভ করেন যে টুর্নামেন্টে আর্জেন্টিনা রানার-আপ হয়। ২০১১ সালের অগাস্টে তিনি আর্জেন্টিনা দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পান। অধিনায়ক হিসেবে তিনি আর্জেন্টিনাকে টানা তিনটি টুর্নামেন্টের ফাইনালে তোলেন: ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপ, ২০১৫ কোপা আমেরিকা এবং ২০১৬ কোপা আমেরিকা। তিনি ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপে গোল্ডেন বল অর্জন করেন।
লিওনেল মেসি রেকর্ডসংখ্যক, অর্থাৎ ছয়বার ব্যালন ডি অর জয় করেছেন, যার মধ্যে চারটি জিতেছেন টানা চার বছরে। পাশাপাশি রেকর্ড ছয়বার ইউরোপীয় গোল্ডেন শু-ও জিতেছেন। তিনি তার পুরো পেশাদার জীবন পার করেছেন বার্সেলোনায়, যেখানে তিনি জিতেছেন মোট ৩২টি শিরোপা, যার মধ্যে রয়েছে ৯টি লা লিগা, ৪টি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ৬টি কোপা দেল রে। একজন অসাধারণ গোলদাতা হিসেবে মেসির দখলে রয়েছে লা লিগায় সর্বোচ্চ সংখ্যক গোল (৪০৮), লা লিগায় এক মরসুমে সর্বোচ্চ গোল (৫০), ইউরোপে এক মরসুমে সর্বোচ্চ গোল (৭৩), এক পঞ্জিকাবর্ষে সর্বোচ্চ গোল (৯১), এল ক্লাসিকোর ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোল (২৬) এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ হ্যাট্রিকের (৮) রেকর্ড। পাশাপাশি মেসি একজন সৃষ্টিশীল প্লেমেকার হিসেবেও সেরা। তিনি লা লিগা (১৬৩) এবং কোপা আমেরিকার (১১) ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলে সহায়তাকারীর রেকর্ডেরও মালিক। জাতীয় দল এবং ক্লাবের হয়ে তিনি ৬০০-এর অধিক পেশাদার গোল করেছেন। জাতীয় দলে তার কোনো মেজর ট্রফি নেই।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন