SS TV live
SS News
wb_sunny

এই মুহুর্তে

সোনারগাঁওয়ে কোটিপতির ঘরে ১০ টাকা কেজির চাল।।


রুবেল মিয়াসোনারগাঁও সময়ঃ সোনারগাঁওয়ে করোনা সংক্রমন কালে নিম্ন আয়ের অসহায়  ও অসচ্ছল মানুষের সহায়তায় সরকার কর্তৃক ১০ টাকা কেজি চালে প্রতারণার মাধ্যমে ভাগ বসিয়েছে বহুতল বাড়ির  মালিক কোটিপতি দুুই ভাই। 
জানা গেছে, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদ গেট সংলগ্ন পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের জয়রামপুর গ্রামের তিন তলা বাড়ির মালিক নজুমুদ্দিন মিয়ার ছেলে  আতাউর রহমান ও আবুল মোতালিব(বুট্টু)। বাড়ির মালিক আতাউর রহমানের মেয়ের জামাই ইয়ানবী সোনারগাঁ উপজেলা ভূমি অফিসের উপসহকারী ভূমি কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত এবং তার ছেলেও এসিল্যান্ড অফিসে কর্মরত। তারা উভয়ই সচ্ছলপরিবার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। কাউন্সিলরের সাথে সখ্যতা করে প্রতারনার মাধ্যমে গরিবের ১০ টাকা কেজি চাউল  ৩ দফায় প্রায় ১২০ কেজি হাতিয়ে নিয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, উপজেলা থেকে মাত্র ১০ গজ দূরে নজুমুদ্দিন মিয়ার ছেলে  আতাউর ও  মোতালিব (বুট্টু) কয়েকটি  গাড়িসহ বহুতল বাড়ির মালিক।  একই বাপের এই দুই সন্তানের বাসায় ভাড়ায় থাকে শ্রমজীবী প্রায় ১৫/১৬ টি পরিবার। তাদের কোনো রকম অর্থসহায়তা না করে বরং তারা স্থানীয়  কাউন্সিলর  ফারুক আহমেদ তপনের সাথে সখ্যতা করে  ১০ টাকা কেজি চাউলের ৩ দফায় হাতিয়ে নেয় ১২০ কেজি চাউল। এতে বঞ্চিত হচ্ছে অসংখ্য  অসহায় পরিবার। 
প্রতারক এই বাড়ির মালিক  মোতালিব(বুট্টু) জানান,আমার বড় ভাই আতাউর ও আমি দুইজনই সরকারকর্তৃক বিতরণকৃত ১০ টাকা কেজি চাউল পেয়েছি। স্থানীয় কাউন্সিলর তপন আমাদের এই কার্ড করে দিয়েছে। সাংবাদিকদের আরেক জবাবে তিনি বলেন এই চাউল আমাকে ও আমার বড় ভাইয়ের নামে দিয়েছে এখানে ভাড়াটিয়াদের দেয়ার প্রশ্নই  আসেনা।
  পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর  ফারুক হোসেন তপন বলেন, আমার কল লিষ্ট দেখলে বুঝতে পারবেন অসংখ্যবার এই চাউলের জন্য তারা আমাকে ফোন করেছে। আমি ইচ্ছাকৃতভাবে করিনি। এইটা ভুলবসত হয়ে গেছে পরবর্তীতে  তাদের কার্ড গুলো বাতিল করা হবে।
এ ব্যপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম জানান, যদি এমন কোনো সামর্থ্যবান ব্যাক্তি এই অনিয়মের সাথে জড়িত থাকে তাহলে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। 

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন