SS TV live
SS News
wb_sunny

এই মুহুর্তে

সমাজ সেবক নুরা পাগলা


লেখকঃ গাজী মোবারক ভাই

প্যান্ট টানতে টানতে নুরা পাগলায় খালি দোঁড়াইতাছে আর এদিক ও দিক চাইতাছে। ঐ নুরা কই যাস জিজ্ঞেস করতেই হাফাইতে হাফাইতে কইল ভাই কয়ডা ফহিন্নি ভাড়া করমু কিন্তু কোন মানুষজনই তো রাস্তায় দেকতাছি না।
কেন জানছ না দেশে লকডাউন চলতাছে। কেউ বাড়ির বাইরে বের হয়না।
এইডা তো জানি, কিন্তু না দুইএকজনও তো বাড়াইবো।

ফহিন্নি ভাড়া করবি মানি বুঝলাম না। আরে ভাই দাতা সাজার এ সুযোগ মিস করন যাইবো না। আগে তো কোন কিছু প্রচার করতে সাংবাদিকগো হাতে পায়ে ধরতে অইছে। এহন আর ঐডা লাগে না। ঢোল একটা বানাইছি। বাড়ি দিলে টাসটাস আওয়াজ অয়। দেশ না পুরো দুনিয়ার মানুষ হেই আওয়াজ পায়। হের লাইগা নিজের ঢোল নিজেই বাজাইমু।

ঢোল, দাতা এইডা তো কিছু বুঝলাম না। আর ফহিন্নি?
দূরমিয়া ঢোল অইলো পেচবুক। আমি একটা আইটি বানাইছি। এহন ৫০জন ফহিন্নি ভাড়া কইরা হেগো আত একটা কইরা ৫০০ টেহার নোট দিমু আর ছবি তুলমো। আর রাইত ভইরা হেইডা পেজবুকে দিমু।

তয় তো তোর অনেক টেকা দরকার। ৫০ জনরে ৫০০ কইরা দিলে তো ২৫ হাজার টেহা লাগবো। এত টেহা কই পাইলি। আল্লায় তোর মঙ্গল করুক।
আরে মিয়া আমনের মাতায় কিছু নাই। আমি কইছি ৫০০ টেহা কইরা দিমু। আমি কইছি ৫০০ টেহা দিয়া ছবি তুলমু। বুঝেন নাই যেরা রাস্তায় রাস্তায় ভিক্ষা করে হেগো পাইলে ৫০০ টেহার নোট দিয়া ছবি তুইলা ৫০০ টেহা রাইখা ২০ টেহা ধরাই দিমু। এতেই হেরা খুশি। এই আকালের আমলে কোন কোটিপতি ফহিন্নিগো ২০ টেহা দিবো।

এইডা বেইমানি অয় না।
নুরা প্যান্ট টানতে টানতে কইলো আরে মিয়া আর্লার কাছে শুক্কুর মানেন। আমি তো ফহিন্নিগো জীবনে একটেহাও দেই নাই। ছবির উছিলায় তো ২০ টেহা অইলেও পাইছে।১টা হাজার টেহা দিতাছি। ছবি তোলার উছিলায় অইলেও তো ৫০ জনে ১০০০ টেহা পাইলো। আর আমি অল্পপুজিতে বিশিস্ট দানবীর অইয়া গেলাম।

তয় এইডা না কইরা ১০ টেহা দামের মাক্স দে। ১ হাজার টেহায় ১শ জনরে দিতে পারবি।

হেইডা তো এতদিন দিলাম। কেন ফেসবুক দেহেন না একটা মাক্স একজন পঙ্গুমানুষরে আমি পড়াইতে গেছি দেইখা ফাও প্রচারের লোভে আর ২৫জনে মাক্স ধইরা ছবি তুলছে। হেইডাত মানুষ আমারে বহাবহি করছে।
তো চাউল আলু পেয়াজ দে।

হেইডারও ব্যবস্থা আছে।যেই ফহিন্নিগো টেহা দিয়া ছবি তুলমো হেগো আবার আগামী শুক্রবারে পামু। হেই সময় চালের বস্তা দিয়া ছবি তুইলা ফেসবুকে দিমু। সগল দিছে এককেজি, ২ কেজি, ৩ কেজি, ৫ কেজি, ১০ কেজি।আমি দিমু এক বস্তা করে। আমার নামডা কেমন ফাটবো কন দেহি। বলেই গর্বে নুরা পাগলার বুকটা ভরে গেল। প্যান্ট পরে যাচ্ছে দেখে থাফাদা প্যান্ট ধইরা কইলু বিষয়ডা চিন্তা কইরা দেহেন?

এত টেহা পাবি কই। ১ বস্তা চালের দাম কম কইরা অইলো তো ২ হাজারের উপরে।

২ হাজার না ২০ হাজার টেহা অইলেও আমার কোন সমস্যা নাই। আমি দিমু আর ছবি তুলমু।

এত টেহা খরচ করলে ফকির অইয়া যাবি।

আরে মিয়া আমনের আক্কুল অইতো না জীবনেও। আমি কি বস্তা একবারে দিয়া দিমু। হেরা মসজিদ ভিক্ষা করতে আইবো ওভারটাইম হিসাবে আমার এনে ছবি তুলবো।যারা ছবি তুলবো হেগো প্রত্যেকেরে আধাকেজি চাল দিমু । এই কম কি?
প্রতারনা অইয়া গেল না।গরিবের লগে প্রতারনা করা ঠিক অইবো।

প্যান্ট টানতে টানতে নুরা কইলো, দুর মিয়া হগলডাতই পন্ডিতি করেন। আমি সমাজসেবক না সাজতে চাইতাম তয় ফহিন্নিরাতো এই আধাকেজি চালও পাইতো না। আল্লার কাছে শুকুর মানেন ফেসবুকের কল্যানে হেরা আধাকেজি চাল অইলেও পাইলো। আর আমি ছবি দিয়া রাতারাতি হিট অইয়া যামু। তহন আর আমারে কউ নুরা পাগলা কইবো না। কইবো সমাজ সেবক নুরা।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন