SS TV live
youtube
wb_sunny

এই মুহুর্তে

অবৈধ আহবায়ক কমিটিকে প্রতিহত করার ঘোষণা :সাবেক সাংসদ


সোনারগাঁও সময়ঃ  সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলগের সাবেক সাংসদ আবদুল্লাহ আল কায়সার বলেন, যারা আওয়ামী রাজনীতি করে মামলা-হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তারা কমিটিতে আজ নেই। সুবিধাভুগীরা আহবায়ক কমিটিতে এসেছেন। এ কমিটি অবৈধ ও অগঠণতান্ত্রিক ভাবে করা হয়েছে। আমরা এ কমিটি মানি না। আমি কমিটিতে কোন পদ-পদবী চাই না। আমি চাই ত্যাগী নেতাকর্মীদের অংশ গ্রহনে একটি গ্রহণ যোগ্য কমিটি। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, বর্তমান অবৈধ আহবায়ক কমিটি উপজেলার যেখানেই সভা করতে যাবে সেখানেই প্রতিহত করবেন।
গতকাল শুক্রবার বিকালে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা অবস্থিত সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে এ প্রতিবাদ সভা করা হয়। সোনারগাঁ উপজেলারআওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটিকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে প্রতিবাদ সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁ আসনের সাবেক এমপি আবদুল্লাহ আল কায়সার।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন বলেন, আমরা রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। আমাদের কোন পদ-পদবীর প্রয়োজন নাই। তবে যোগ্যদের দিয়ে কমিটি করার পক্ষে আমরা। এখন টাকা পয়সা খরচ করে বড় বড় নেতা হয়ে যায়। জনগণ তাদের ডাস্টবিনে ফেলে দিবে এখন শুধু সময়ের ব্যাপার। শুধুমাত্র ৮জন লোক সোনারগাঁয়ে আওযামীলীগের জন্য যোগ্য লোক আর বাকিদের যোগ্যতা নাই। এটা হতে পারে না, যারা আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে জাতীয় পার্টির পিছনে পিছনে ঘুরে তাদেরকে ধরে চর মারা উচিত। তিনি আরো বলেন, এখন কোন মিটিং বা বৈঠক করতে চাইলেই সবাই রয়েল রিসোর্টে চলে যায়। সাধারণ নেতাকর্মীরা ভয়ে সেখানে ডুকতেও পারে না। আওয়ামীলীগের মিটিং কেউ করতে চাইলে রয়েল রিসোর্টে নয় দলীয় কার্যালয়ে করবেন। তিনি আরো বলেন, সোনারগাঁয়ের রাজনীতি সোনারগাঁয়ের নেতাদের দ্বারা পরিচালিত হবে বাহিরের কোন নেতা মাথা ঘামাতে পারবে না।
প্রতিবাদ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ে মোশারফ হোসেন, সাবেক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম রুমা, মোগরাপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও বর্তমান আহবায়ক কমিটির সদস্য আরিফ মাসুদ বাবু, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক দেওয়ান উদ্দিন চুন্নু, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী মুজিবুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মানিক, সাধারণ সম্পাদক রবিন আহমেদ, প্রজম্মলীগ নেতা  আহমেদ মেরাজ, আল-আমিন সরকারসহ একটি পৌরসভা ও ১০টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ।

  •  আহবায়ক কমিটিকে সদস্য পদে থাকা আরিফ মাসুদ বাবু তার বক্তব্যে বলেন, আহবায়ক কমিটিতে আমার নাম আছে আমি নিজেই জানি না। এ কমিটিতে আমাকে সভাপতি দিলেও আমি থাকবো না। তারা আমাকে চিনতে ভুল করেছে। আমি এ কমিটি মানি না। জেলা কমিটির কাছে আহবান জানাচ্ছি তারা যেন শীঘ্রই একটি সঠিক কমিটি উপহার দেন।

Tags

সাবসক্রাইব করুন!

সবার আগে নিউজ পেতে সাবসক্রাইব করুন!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন