গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে জমি বন্দককে কেন্দ্র করে মারধর: থানায় এজাহার দ্বায়ের

 


জিহাদ হক্কনী : গাইবান্ধা গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে জমি বন্দককে কেন্দ্র করে মারধরের ঘটনায় থানায় এজাহার দ্বায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) পলাশবাড়ী উপজেলার  বলরামপুর গ্রামের মৃত আমজাদ হোসেনের পুত্র রাসেল মিয়া (৪০), ফেরেদৌস মিয়া (৩৫) ও একই গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে মোস্তফা মিয়া (৫৫)' র নাম উল্লেখ করে এজাহার দায়ের করেন বলরামপুর গ্রামের সোহেল মিয়া। 


এজাহার সূত্রে জানাযায়, আসামিদের সাথে বাদির  পূর্ব হইতে পারিবারিক, সামাজিক ও বাবার নামীয় জমি বন্দক নেওয়াকে কেন্দ্র করিয়া ঝগড়া বিবাদসহ মনোমালিন্য চলিয়া আসিতেছে। এরই জের ধরিয়া আসামীগন হাতে লাঠি, সোডা, লোহার রড, ছোরা ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হইয়া ইং১১/০৮/২০২০ তারিখ দুপুর অনুমান ১২.০০ ঘটিকার সময় বলারামপুর মৌজাস্থ আমার বসত বাড়ীর ভিতর আঙ্গিনায় আসিয়া বাদিসহ তার স্ত্রী মোছাঃ জুঁই বেগম ও বৃদ্ধ মা মোছাঃ আয়শা বেগম ও মোছাঃ ফাতেমা বেগমদের উদ্দেশ্যে করিয়া অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করিলে বাদিরা নিষেধ করায়  আসামী মোস্তফা মিয়ার হুকুমে সকল সকল আসামীগণ তাহাদের হাতে থাকা বাঁশের লাঠি ও লোহার রড দ্বারা আমাকেসহ আমার স্ত্রী মোছাঃ জুঁই বেগম ও বৃদ্ধা মা মোছাঃ আয়শা বেগম ও মোছাঃ ফাতেমা বেগমদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথারী মারপিট করিয়া ছেলা ফুলা জখম করে। আসামী ফেরদৌস মিয়ার হাতে থাকা বাশের লাঠি দ্বারা আঘাত করে। আসামিরা বাদির জুই বেগমের পড়নের কাপড় ধরে টানা হেচরা করে শ্লীলতাহানি ঘটায়। এছাড়া জুই বেগমের  গলায় থাকা আট আনার চেন যাহার আনুমানিক মূল্য ২৮০০০ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে তাদের চিৎকারে আসে পাশের লোকজন আগাইয়া আসিয়া জখমিদের উদ্ধার করে অপরিচিত অটোযোগে হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

MKRdezign

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget