অসহায় মায়ের পাশে ঈদ উপহার নিয়ে "মানবতার ফেরিওয়ালা" ইঞ্জিনিয়ার মাসুম।।

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ করোনার প্রাদুর্ভাবে টাকার অভাবে সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশু সন্তান বিক্রি করতে চাওয়ায় মা ও সন্তানদের দায়িত্ব নেওয়ার পর ঈদ বাজার, শিশুদের খেলনা ও পোষাক নিয়ে বাড়িতে গেলেন সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক ও পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ওই মা সন্তানের বাড়িতে এসব নিয়ে হাজির হন।
জানা যায়, সদ্য ভূমিষ্ট শিশুর মা মনি বেগম পিরোজপুর ইউনিয়নের আষাঢ়ীয়ারচর গ্রামের ভাড়াটিয়া বাবুর্চি সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। সাইফুল ইসলাম তার স্ত্রী মনি বেগমকে গর্ভবতী অবস্থায় রেখে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। গত ৪ মে সোমবার মনি বেগম সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কন্য সন্তান জন্ম দেয়। পরে টাকার অভাবে ওই কন্যা শিশুকে বিক্রি করে দেওয়ার চেষ্টা করেন। বিষয়টি জানতে পেরে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম ওই মা সন্তান ও পরিবারের দায়িত্ব নেন।
দায়িত্ব নেওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকালে আষাঢ়ীয়ারচর গ্রামের বাড়িতে চেয়ারম্যান মাসুম গিয়ে ওই শিশু সন্তানকে কোলে নিয়ে আদর করেন। পাশাপাািশ ওই পরিবারের ঈদ বাজার, সন্তানদের জামাকাপড় ও খেলনা দিয়ে আসেন। এর আগে তিনি ওই পরিবারকে ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আলমগীর কবির ও সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগ নেতা লুৎফর রহমান।
শিশু সন্তানের মা মনি বেগম আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, আমাকে অসহায় অবস্থায় আমার স্বামী আমাকে ফেলে চলে যাওয়ার পর সন্তান জন্ম দেই। ক্ষোভে ও দুঃখে এ সন্তান বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। পরে বিষয়টি চেয়ারম্যান মাসুম জেনে আমার ও আমার সন্তাদের ভরণ পোষনের দায়িত্ব নেন। এ মানবিকতার জন্য আল্লাহ ওনাকে ভালো রাখবেন।
পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম বলেন, টাকার অভাবে একজন মা তার সন্তানকে বিক্রি করে দেবেন কোন ভাবে মেনে নেওয়া যায় না। এটা একটি মর্মস্পর্শী ঘটনা। আমি ওই অসহায় পরিবারের পাশে থাকবো।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

MKRdezign

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget