সোনারগাঁওয়ে মামলার বাদীকে হত্যার হুমকি। সোনারগাঁও সময়

সোনারগাঁও সময়ঃ নারায়ণগঞ্জ সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়ন   লেবুছড়া গ্রামের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় মামলা করায় বাদীর পরিবারকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে  আসামিপক্ষের বিরুদ্ধে।

   উপজেলার  মোগরাপাড়া ইউনিয়ন লেবুছড়া গ্রামের  জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী সুরাইয়া বেগম(৪৮)     মামলার বাদি মিজানের  ( মা )  সোনারগাঁ  থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি  করেছেন।( জিডি)  নাম্বার  ১০৬০ তাং২০,১২,২০১৯ ইং।

জিডির অভিযোগ অভিযোগ থেকে জানাযায়, লেবুছডা  গ্রামের রাসেল (২৬) পিতা আঃ সোবহান, শাওন( ২৪)    পিতা মোঃ বারেক  উভয় সাং লেবুছড়া তাদের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসিতেছে।। এর জেরে গত ১৮ ডিসেম্বর  দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।   আমাদের বসত বাড়িতে আসিয়া আমাদের পরিবার সদস্যদের মারধর করে গুরুতর জখম করেন। আমার ছেলে মিজান বাদি হইয়া তাদের বিরুদ্ধে সোনারগাঁ  থানায় একটি মামলা দায়ের করেন মামলা নং ৪৩ তারিখ ১৯/১২/২০১৯ইং ধারা-১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/

ওই সংঘর্ষের ঘটনায়  আমার ছেলে মোঃ মিজান বাদী হয়ে  সোনারগাঁ থানায়  রাসেল, শাওনসহ  ১১ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

এই মামলা তুলে নিতে মামলার ৩ নম্বর আসামি  রাসেল ও  ৪ নাম্বার আসামি   শাওন মামলার বাদীর মিজানের   পরিবারকে   হত্যার হুমকি দিয়েছেন।

অভিযোগ থেকে জানাযায়, গত বৃহস্পতিবার রাত ৮,৩০ মিনিটের দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হইতে আত্মীয়র বাড়িতে যাওয়ার পথে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা ফুটওভার ব্রিজ নিচে পাইয়া  আসামি  রাসেল ও  আসামি  শাওন  রাস্তায়   মামলা প্রত্যাহার করতে বলেছে। অন্যথায় পরিণাম ভালো হবে না, এক সপ্তাহের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার না করলে জবাই করিয়া ফেলিবে  হুমকি দিচ্ছে।

সুরিয়া বেগম জানান  মাদকব্যবসায়ী  রাসেল ও শাওন তাদের সহযোগীরা গতকাল রাতে আমি ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে আসার পথে চৌরাস্তা ফুটওভার ব্রিজের  নিচে আসামাত্র আমাকে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে।  এক সপ্তাহের মধ্যে মামলা তুলে না নিলে  আমার ছেলে মিজান ও পরিবার সদস্যদের কে জবাই করে ফেলবে।  ঘটনায়  আমি আতঙ্কিত হয়ে সোনারগাঁ  থানায় একটি জিডি করেছি। ভয়ে আমি এখন ঘর থেকে বের হতে পারছি না।



সুরিয়া বেগমের  জিডির তদন্তকারী কর্মকর্তা  সোনারগাঁ  থানার এসআই আজিজুলহক   বলেন, “সুরিয়া বেগমের জিডি পেয়েছি। তদন্ত চলছে। তদন্তে  দোষী প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

MKRdezign

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget