সোনারগাঁয়ে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু হাসপাতাল ভাংচুর। সোনারগাঁও সময়

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় অমান্তিকা নামের এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় প্রসূতির স্বজনরা সোমবার বিকেলে ওই হাসপাতালে ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
প্রসূতির পিতা সোহেল মিয়া ও স্বামী পিন্টুর অভিযোগ, গর্ভবতী অমান্তিকাকে তারা গত শুক্রবার সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে প্রসূতি বিভাগের ডাক্তার নূরজাহান তাকে জরুরী ভিত্তিতে সিজার করানোর পরামর্শ দেয়।
পরে সিজারের সময় পেটের ভিতর ব্যান্ডেজের কাপড় (গজ) রেখেই তিনি সেলাই করে দেন। এতে অমান্তিকার পেট ফুলে প্রচন্ড বমি শুরু হলে তিনি তাকে নারায়ণগঞ্জ কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। পরে ওখানে আবার অপারেশন করে গজ বের করেন।
তবে রক্তপাত বন্ধ না হওয়ায় তিনি তার জরায়ু কেটে ফেলেন। পরে অবস্থার আরো অবনতি হয়ে সোমবার সকালে অমান্তিকা মারা যায়।
এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শরীফ উদ্দিন কাদেরী জানান, রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় চিকিৎসক দায়ী হতে পারেন। তবে হাসপাতাল ভাঙচুর করা ঠিক হয়নি। রোগীর স্বজনদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
নিহত অমান্তিকা সোনারগাঁও উপজেলার মোগড়াপাড়া ইউনিয়নের বড় সাদিপুর এলাকার পিন্টু মিয়ার স্ত্রী এবং বন্দর উপজেলার দক্ষিণ কল্যান্দী এলাকার সোহেল মিয়ার মেয়ে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

MKRdezign

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget