যৌতকের কারনে ভেঙে যাওয়া সংসার পুনরায় জুড়ে দিলেন (এএসআই মনিরুল ইসলাম। সোনারগাঁও সময়

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার হামছাদী এলাকায় যৌতুকের দাবিতে প্রায় ভেঙ্গে যাওয়া গৃহবধূ নুর আক্তারের সংসার পুনরায় জুড়ে দিলেন সোনারগাঁ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মনিরুল ইসলাম। গত বছরের ১১ মার্চ সোনারগাঁ উপজেলার হামছাদী এলাকার ঈমান আলীর ছেলে ইয়াসিন মিয়ার সঙ্গে বারদী ইউনিয়নের ফুলদী গ্রামের সোলাইমান মিয়ার মেয়ে নুর আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় তার স্বামী ও শশুরবাড়ীর লোকজন যৌতুকের জন্য গৃহবধূ নুর আক্তারকে নির্যাতন করে আসছে। স্বামী ও শশুরবাড়ীর লোকজনের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

লিখিত অভিযোগে গৃহবধূ উল্লেখ্য করেন, গত বছরের ১১ মার্চ সোনারগাঁ উপজেলার হামছাদী এলাকার ঈমান আলীর ছেলে ইয়াসিন মিয়ার সঙ্গে বারদী ইউনিয়নের ফুলদী গ্রামের সোলাইমান মিয়ার মেয়ে নুর আক্তারের বিয়ে হয়। বিবাহিত জীবনে জিহাদ নামে তাদের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় তার স্বামী ইয়াসিন, শশুর ঈমান আলী, শাশুড়ী বেদেনা বেগম, ভাশুর সাদেক আলী ও আরমিনা বেগম মিলে তাকে নির্যাতন করে আসছে। গত ২২ সেপ্টেম্বর গৃহবধূ তার বাবার বাড়িতে অবস্থান কালে সেখানে তার স্বামী গিয়ে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক চায়। গৃহবধূ যৌতুক দিতে অস্বীকার করলে তাকে তার স্বামী পিটিয়ে মারাত্বক ভাবে আহত করে এবং সংসার ভেঙ্গে দেওয়ার হুমকি দেয়। এঘটনায় স্বামীর নিযার্তন সহ্য করতে না পেরে গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এ সময় এএসআই মনিরুল ইসলাম বলেন, দুই পক্ষের অভিভাবককে থানায় ডেকে আনা হয়। সংসারে সুখ-দুঃখ থাকবেই। অভাব-অনটনের কারণে অনেক সময় সংসারে অশান্তি দেখা দেয়। কিন্তু নিজেদের মধ্যে মিল থাকলে অভাবও সংসারের শান্তি নষ্ট করতে পারে না। স্বামী-স্ত্রীর ভালোবাসার কাছে সবই হার মানে। তিনি বলেন, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে সংসারে অশান্তি বাড়বে বৈ কমবে না। এ কারণে সংসার ভেঙেও যেতে পারে। তা ছাড়া স্বামীর গায়ে শক্তি আছে বলেই স্ত্রীকে মারধর করা যাবে না। এটা অন্যায়। তাঁর এ কথা শুনে স্বামী-স্ত্রী দুজনই অনুতপ্ত হন।



আরো বলেন, ‘সমাজে পুলিশ সম্পর্কে অনেকের খারাপ ধারণা আছে। কিন্তু আমরাও মানুষ। আমদেরও ভাই, বোন, স্বামী-স্ত্রীসহ সমাজ-সংসার রয়েছে। সংসারের সমস্যাটা আমরাও বুঝি। এ ঘটনা শুনে বিবেকের তাড়নায় সংসারটি জোড়া লাগানোর চেষ্টা করেছি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

MKRdezign

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget