হ্যাপী ফ্রেন্ডশিপ ডে

প্রতি বছর আগস্ট মাসের প্রথম রোববারে সারা বিশ্বজুড়ে বন্ধু দিবস পালন করা হয় । কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না বন্ধু দিবস কখন কিভাবে এলো। বন্ধু দিবসের ইতিহাস নিয়ে বির্তক থাকলেও জানা যায় ১৯৩৫ সালে আগস্টের প্রথম শনিবার যুক্তরাষ্ট্র সরকার এক ব্যক্তির মৃত্যুদ্ন্ড কার্যকর করে। আর বন্ধু হারানোর দুঃখে পরদিনই তার এক বন্ধু আত্নহত্যা করে। ঘটনাটি বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে সমগ্র পৃথিবীতে। বিতর্কিত বন্ধু দিবসঃ ক) ১৯১৯ সাল থেকেই শুভেচ্ছা কার্ড প্রস্তুতকারক Joyce Hall উৎসাহে বন্ধু দিবস পালিত হচ্ছিল। কিন্তু Joyce Hall সময়ে দিবসটি পালনের ক্ষেত্রে ঠিক সেভাবে জনপ্রিয়তা পায়নি। [সুত্রঃ ইউএনআরআইসি ] খ) ১৯৫৮ সালের গোড়া দিকে দিবসটি প্রথম পালিত হয় প্যারাগুয়ে রাষ্ট্রে। পর্যায়ক্রমে দিবসটি দক্ষিন আমেরিকার বিভিন্ন রাষ্ট্রে পালন করা শুরু হয়। [সুত্রঃ উইকিপিডিয়া ] গ) বন্ধুর জন্য বন্ধুর ঐ আত্মত্যাগকে সম্মান জানাতে ২০১১ সালের ২৭শে এপ্রিল UN UN General Assembly তে ১৯৩৫ সালের আগস্ট মাসের প্রথম রোববারকে বন্ধু দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়। তখন বেশকিছু দেশ বন্ধুত্ব দিবসের সংস্কৃতিকে গ্রহণ করে নেয়। [সুত্রঃ জাতিসংঘ ] ঘ) ১৯৯৭ সালে জাতিসংঘ বিশ্বময় বন্ধুত্বের আলাদা অবস্থানে নিজেদের নিয়ে যায়। সে বছরটিতে জাতিসংঘ বিখ্যাত কার্টুন চরিত্র উইনি দ্যা পুহকে বন্ধুত্বের বিশ্বদূত হিসেবে নির্বাচিত করে। বন্ধু দিবসের এই বিশ্বদূত ছাড়াও বন্ধুত্ব দিবসের সঙ্গে ওতোপ্রতোভাবে জড়িয়ে আছে হলুদ গোলাপ আর ফ্রেন্ডশিপ ব্যান্ডের মতো বিষয়গুলোও। মজার বিষয় হলো, এই ফ্রেন্ডশিপ ব্যান্ডের ধারণাটিও এসেছে আমেরিকা থেকেই। আমেরিকার আদিবাসীদের মধ্যে অনেক আগে থেকেই বন্ধুত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ ব্যান্ড দেয়ার এই রীতি চালু আছে। তারা তাদের বন্ধুদের জন্য ব্যান্ড তৈরি করে। আর যাকে ব্যান্ড দেয়া হয়, সেও কখনোই ব্যান্ডটি খোলে না।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

[blogger]

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

merrymoonmary থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget